সামন্ততন্ত্র থেকে পুঁজিবাদে রূপান্তরের সম্পর্কে বিতর্কটি আলোচনা করো | Discuss the debate on the transition from Feudalism to Capitalism.

পঞ্চদশ-সপ্তদশ শতকের সময়কালে সামন্ততান্ত্রিক অর্থনীতির ধনতান্ত্রিক অর্থনীতিতে রুপান্তর হয়েছিল বলে ঐ সময়কে সামন্ততান্ত্রিক ও ধনতান্ত্রিক যুগের সন্ধিক্ষণের সময় বলে মনে করা হয়| 

এক্ষেত্রে কাল মার্কসের ধনতন্ত্রের উত্থান বিষয়ক আলোচনার প্রথম ঐতিহাসিক রূপ দেন অধ্যাপক মরিস ডব| মরিস ডব চতুর্দশ শতকে খাজনার নগদীকরণ শুরু হলে খাজনা মেটানোর তাগিদে কৃষকেরা তাদের উৎপাদনের একটা বড় অংশ নগদের বিনিময়ে বাজারে বিক্রি করতে শুরু করে| 

কৃষকদের মধ্যে অপেক্ষাকৃত সচ্ছল যারা ছিল, তারা ব্যক্তিগত উদ্যোগে নিজস্ব উৎপাদন নিয়ে শহরের বাজারে বিক্রি করতে শুরু করে| সেই বাণিজ্য থেকে যা মুনাফা হয়, তা দিয়ে অন্যান্য গ্রামবাসীর থেকে তাদের ফসলের একটা অংশ কিনে নিয়ে আবার বাজারে নিয়ে যেত| ডবের মতে, এই ভাবেই সাধারণ কৃষক পুঁজিপতি কৃষক-বণিকে পরিণত হয়েছিল| 

শহরের বণিকও কৃষিপণ্যের সন্ধানে গ্রামে আসতো ঠিকই, কিন্তু ডবের মতে, ধনতন্ত্রের উত্থানে পুঁজিপতি কৃষকের ভূমিকা আরো বেশি তাৎপর্যপূর্ণ ছিল| কারণ বিত্তশালী কৃষক কৃষি উৎপাদন বাড়ানোর উদ্দেশ্যে জমিতে লগ্নি করতে শুরু করে, সেখানে পুঁজিবাদী কৃষক উদ্বৃত্ত জমিতে লগ্নি করে ভূস্বামীতে পরিণত করে পূঁজি বাড়াতে সফল হয় এবং সেখানে বাণিজ্যের সাধনও তুলনামূলকভাবে বেশি থাকে| ফলস্বরূপ বাণিজ্য বিশেষ লাভজনক সাব্যস্ত হয়| সেক্ষেত্রে সমাজের অন্যান্য শ্রেণিও অনুরূপভাবে কৃষি ও বাণিজ্য লগ্নি করতে সম্মত হয়| 

এরকম পরিস্থিতিতে ধনতন্ত্রের প্রকৃত বিকাশ সম্ভব হতে পারে- যেমন হয়েছিল সপ্তদশ সপ্তদশ শতকের ইংল্যান্ডে| সামান্য কিছু বিশেষ বিষয়ে অল্প-বিস্তর মতান্তর থাকলেও এই ব্যাখ্যা পল সুইজি, কোহাচিরো তাকাহাশি প্রমূখ ঐতিহাসিকরা মোটের উপর মেনে নিয়েছেন|

সামন্ততন্ত্র থেকে পুঁজিবাদে উত্তরণ বিষয়ক এই বিতর্ক , ১৯৫০র গোড়ার দিকে, প্রথম ছেপে বেরোয় সায়েন্স অ্যান্ড সোসাইটির পৃষ্ঠায় । যুদ্ধোত্তর কালে মার্কসবাদী ইতিহাস সংরোচনবিদ্যায় এ এক উল্লেখযোগ্য অবদান । একই বিষয়ের ওপর বহুকৌণিক আলোকপাত করেন মরিস ডব, পল সুইজি , কোহাচিরো তাকাহাসি , ক্রিস্টোফার হিলের মতন সুপন্ডিত মানুষজন । মূল বিতর্কের পূর্ণাঙ্গ পাঠের সঙ্গে ঐতিহাসিক ঝর্ঝ লেফেব্‌ভ এবং জুলিয়ানা প্রোকাচ্চির লেখা দুটিও ঠাঁই পেয়েছে সঙ্গত কারণে।

অন্ধকার যুগে বানিজ্যের ভুমিকা কী ছিল? কিভাবেই বা মধ্যযুগ বলে বিবর্তিত হল সামন্ত খাজনার বিভিন্ন ধরণধারণ ? মধ্যযুগের নগরাদির অর্থনৈ তিক উৎ্‌পত্তি কোথায় খোঁজ করা উচিৎ্‌ ? কেনই বা সার্ফডম শেষ পর্যন্ত মুছে গেল পশ্চিম ইউরোপে ? সামন্ততন্ত্র থেকে পুঁজিবাদে উত্তরণের সময় ঠীক কী সম্পর্ক বহাল ছিল নগর আর গ্রামাঞ্চলের মধ্যে ? ইউরোপে পুঁজির প্রাথমিক সঞ্চয়ের ক্ষেত্রে বৈদেশিক বাণিজ্য বিস্তারের গুরুত্বকে কিভাবে মুল্যায়ন করা হবে ? প্রথম বুর্জোয়া বিপ্লব শুরু হয় কখন , আর তাতে অংশগ্রহণই বা করে কোন কোন সামাজিক শ্রেণি ? এরকম আরো বহহতর প্রশ্নেরই জবাব খোঁজা হইয়েছে এসব লেখাজোখায় ।

মূল বিতর্ক অনুষ্ঠিত হওয়ার পর কয়েক বছর পার হয়ে গেছে । বিষয়টাকে হগিরে ইতিমধ্যে নতুন নতুন গবেষণাও হয়েছে প্রচুর । রডনি হিলটন , তাঁর মূল্যবান ভূমিকায় , সেসবও খতিয়ে দেখেছেন গভীর মনোযোগে । সন্দেহ নেই , শিক্ষার্থী ও সাধারণ পাঠক, সবাইকেই সমভাবে টানবে এই সঙ্কলন ।


ইউরোপে শিল্প বিপ্লবের সূচনার কারণগুলি কি কি

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Discover more from

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading

Invision pharma ltd. ©2024 compitative exams mcq questions and answers. General dm developments north west.