‘শাশ্বতী’ কবিতার বিষয়বস্তু আলোচনা করে কবিতার নামকরণের সার্থকতা বিচার করুন।

“শাশ্বতী” কবিতা সুকান্ত ভট্টাচার্যের একটি অমূল্যবান রচনা, যা বিভিন্ন মাধ্যমে মোক্ষ বা অমরতা নিয়ে বিচার করে। এই কবিতার নামকরণ ও সার্থকতা একইসঙ্গে কবিতার মূল বার্তার সাথে যুক্তি করে।

কবিতার নাম “শাশ্বতী” অভিজ্ঞান ও অনুভূতির বৃহৎ ক্ষেত্রে একটি পরিপ্রেক্ষ্য প্রদান করে। “শাশ্বতী” শব্দটি সমাপন, সুস্থিতি, অমরতা ইত্যাদি অর্থ ধারণ করে এবং কবিতার মাধ্যমে এই শব্দটির বিভিন্ন দিকে অনুসন্ধান হয়। কবি এখানে মোক্ষের অনুভূতির দিকে কল্পনা করে এবং তার মূল্যবান বিচারণা কে কবিতার মাধ্যমে অভিজ্ঞান করার চেষ্টা করেন।

কবি তার কবিতায় মোক্ষের দিকে একটি অদ্ভুত চিত্র বিক্ষেপ করেন, যেখানে সময়, ক্ষণ, এবং মৃত্যুর বৃহৎ দিকটি উল্লেখ করা হয়। কবি মৃত্যুর দিকে হাস্যকর এবং উদার দৃষ্টিভঙ্গি দেখাতে চায়, যেখানে মৃত্যু একটি নতুন জীবনের প্রারম্ভ হতে পারে। এটি একটি অতীতের চোখ দ্বারা মোক্ষের দিকে একটি সূচনা হতে পারে, যেটি প্রাণীর অমরতা এবং জীবনের অব্যক্ত আদির দিকে মুখরূপ হতে পারে।

কবি মোক্ষের দিকে একটি সম্ভাসিত দৃষ্টিভঙ্গি প্রদান করে, যেখানে মোক্ষ সময়, অবস্থা এবং প্রকৃতির সাথে একটি আন্তরিক যোগাযোগ হতে পারে। এটি একটি নতুন আবেগ এবং জীবনের উজ্জ্বল দিকে দেখতে সহায় করতে পারে, তাদের নতুন জীবনের দিকে একটি মার্গ দেখাতে সহায় করতে পারে, এবং প্রাণীদের জীবনের একটি অমর দিকে মুক্তির দিকে দেখতে সহায় করতে পারে।

সুকান্ত ভট্টাচার্যের “শাশ্বতী” কবিতা একটি অমূল্যবান কবিতার নাম, যা মোক্ষ এবং অমরতা নিয়ে একটি অদ্ভুত এবং সুন্দর চিত্র তৈরি করে।

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Discover more from

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading

Abbreviation in computer archives compitative exams mcq questions and answers. Hmo refurb dm developments north west. Invision pharma ltd.