টিনের তলোয়ার নাটকের নামকরণের সার্থকতা আলোচনা করুন।

মুহাম্মদ জাফর ইকবালের “টিনের তলোয়ার” নাটকের নামকরণে একটি গভীর এবং বুদ্ধিমত্তা দৃষ্টিকোণ রয়েছে। নাটকের নাম “টিনের তলোয়ার” হচ্ছে একটি মোহাম্মদইবনে হানিফ এর একটি উক্তি, এবং নামটি সম্পূর্ণভাবে নাটকের বিষয়ের সাথে মিল খাচ্ছে। এই নাটকের মাধ্যমে ইকবাল একটি সতর্কতার বাণী দিয়ে সমাজকে সুচেতন করতে চেষ্টা করেন এবং সমাজে সৃষ্টি করতে চান প্রবল মানবতার বলি ও একটি বিজনবাদী ভিত্তি।

“টিনের তলোয়ার” নাটকের নামকরণ একটি কঠিন এবং জ্ঞানগ্রহণযোগ্য নাম হিসেবে রয়েছে যা নাটকের প্রধান বিষয়ে ভালোভাবে মিল খাচ্ছে। নাটকটি একটি সৃষ্টিকরণমূলক কাজ, যা পূর্বকালের ইসলামি সভ্যতা এবং ইসলামের সমাজবাদী সিদ্ধান্তের আলোকে আসা হয়েছে। “টিনের তলোয়ার” হলো একটি প্রতিকূল সমাজ স্থাপন এবং তার অন্তর্নিহিত দুশ্মনদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম বাড়াতে এবং মানবিক মূল্যের প্রতি মানবিক সচেতনতা উৎপন্ন করতে একটি চেষ্টা।

এই নাটকে ইকবাল প্রদর্শন করতে চান যে, একজন মুসলিম সমাজ স্থাপনে মানবিক মূল্যের বিচার করা গুরুত্বপূর্ণ, এবং তার মাধ্যমে সমাজে সদ্গুণ এবং প্রগুণ লোকদের সৃষ্টি করা হোক। তার মৌলিক বাণী বলে দেয় যে, “টিনের তলোয়ার” অর্থাৎ বাচ্চাদের তলোয়ার হলো সমাজ স্থাপনের একটি অতীত এবং ভবিষ্যতের প্রতি উৎসাহবদ্ধ দৃষ্টিকোণ, যা তার আলোচনার মধ্যে প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।

এই ভাবে, “টিনের তলোয়ার” নাটকের নামকরণ তার মৌলিক বাণী এবং মূল উদ্দেশ্যের সাথে পূর্ণভাবে মিল খাচ্ছে, যা সমাজে মানবিক মূল্য এবং সমাজবাদের অনুষ্ঠানের দিকে ইকবালের দৃষ্টিকোণ দেখায়।

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Discover more from

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading

Physical pharmaceutics 1 3rd semester notes pdf download my first study. Project dm developments north west. Yangzhou university scholarships 2024.