অসুন্দরের মধ্যে সৌন্দর্য্যের অন্বেষণ ‘ব্যাং’ কবিতার বিষয়বস্তু- আলোচনা করো।   অথবা  বুদ্ধদেব বসুর ‘ব্যাং’ কবিতাটি সৌন্দর্যবোধের কবিতা- আলোচনা করো।  অথবা  ‘ব্যাং’ কবিতাটির নামকরণের সার্থকতা বিচার করো।

বুদ্ধদের বসু রচিত ‘ব্যাং’ কবিতাটি ‘দময়ন্তী’ (১৯৪২) কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত। কবিতাটিতে বর্ষাপ্রকৃতির প্রেক্ষাপটে ব্যাংয়ের কামনা-বাসনাময় জীবনের চিত্র বর্ণিত হয়েছে। পাশ্চাত্য সাহিত্যে অসুন্দরের মধ্যে সুন্দরের আবিষ্কার- সৌন্দর্যতত্ব রূপে স্বীকৃত। বুদ্ধদেব বসু এই তত্ত্বটিকে তাঁর ‘দময়ন্তী’ কাব্যের কবিতাগুলিতে প্রতিষ্ঠিত করতে চেয়েছেন। ‘দময়ন্তী’ বুদ্ধদেবের অসুন্দর কবিতার শ্রেষ্ঠ সংকলন এবং সেই সংকলনের একটি উল্লেখযোগ্য কবিতা ‘ব্যাং’।

বাংলা সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় ব্যাঙের উল্লেখ পাওয়া যায়। বৈষ্ণব পদাবলীর সমকালেই ব্যাং সাহিত্যে ঢুকে পড়েছে। বর্ষা মিলনের ঋতু। বাংলাদেশে বর্ষাকালের সঙ্গে ব্যাঙের সুগভীর সম্পর্ক রয়েছে। বর্ষায় শুধু নরনারী নয়, তুচ্ছ প্রাণী ব্যাং-ও মিলনের কামনায় উন্মত্ত হয়ে ওঠে। দৈহিক মিলনের জন্য সঙ্গিনীর অন্বেষণেই ব্যাঙেরা সমবেতভাবে বর্ষার দিনগুলোকে উচ্চস্বরে মুখরিত করে তোলে। কবি ব্যাঙেদের মিলনের এই আহ্বান ধ্বনির পরিচয় দিতে গিয়ে লিখেছেন-

“বর্ষায় ব্যাঙের মূর্তি। বৃষ্টি শেষ, আকাশ নির্বাক;

উচ্চকিত ঐকতানে শোনা গেলো ব্যাঙেদের ডাক।

আদিম উল্লাসে বাজে উন্মুক্ত কণ্ঠের উচ্চ সুর।

আজ কোনো ভয় নেই- বিচ্ছেদের, ক্ষুধার, মৃত্যুর।”

এরপরেই কবি ব্যাঙের জন্য রচনা করেছেন একটি সুন্দর মিলনভূমি। সেই ভূমি জলজ এবং সরস। যেখানে ‘স্ফীত কণ্ঠ’ এবং ‘বীতস্কন্ধ’ ব্যাঙেদের মিলন উৎসব যেন ‘সংগীতের শরীরী সপ্তম’ হয়ে উঠেছে। মিলনে পূর্ণতৃপ্ত ব্যাঙের স্বরূপ বোঝাতে কবি লিখেছেন-

“কাচ-স্বচ্ছ উর্ধ্ব দৃষ্টি চক্ষু যেন ঈশ্বরের খোঁজে।”

পরিতৃপ্ত মিলন যে স্বর্গীয় আনন্দের সমতুল্য তাই এখানে বোঝানো হয়েছে। মিলনের তীব্র উত্তেজনার অবসানে আসে এক সুখময় ক্লান্তি। আবার হয়তো কিছুটা অবসাদ। ব্যাঙের সেই অবসাদগ্রস্ত রূপের পরিচয় দিতে গিয়ে কবি লিখেছেন-

“একটি অক্লান্ত সুর; নিগূঢ় মন্ত্রের শেষ শ্লোক-

নিঃসঙ্গ ব্যাঙের কণ্ঠে উৎসারিত- ক্রোক, ক্রোক, ক্রোক।” কবি অত্যন্ত সার্থকভাবে ‘ব্যাং’ কবিতায় ব্যাঙের জীবনের সঙ্গে বর্ষা প্রকৃতিকে মিলিয়ে দিয়ে এক অপরূপ সৌন্দর্যের সৃষ্টি করেছেন। ব্যাঙ দেখতে অসুন্দর এবং তার ডাক কর্কশ। কিন্তু কবি এখানে সেই অসুন্দর প্রাণীর জীবনে মিলনের সৌন্দর্যকে আবিষ্কার করেছেন- এখানেই কবিতাটির সার্থকতা এবং নামকরণ সার্থক।

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Discover more from

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading

Very important top 50 synonyms for previous year and upcoming compitative exams ssc chsl, mts, cgl , banking etc. About us dm developments north west. Physical pharmaceutics 1 3rd semester notes pdf download.